আন্তর্জাতিক

রানআউটে শুরু, রানআউটেই শেষ ধোনির অধ্যায়

0

মহেন্দ্র সিং ধোনির একটি ভিডিও ক্লিপ খুবই জনপ্রিয়। উইকেটরক্ষকের হাতের কাছে বল রেখে, তাকে বোকা বানিয়ে এক রান নেয়ার সেই ভিডিও প্রমাণ দেয় রানিং বিট্যুইন দ্য উইকেটে কতো ভালো ধোনি। অথচ তার ক্যারিয়ারের শুরু ও শেষ বিন্দু কি না মিলে গেলো রানআউটের মাধ্যমে।

২০০৪ সালের ২৩ ডিসেম্বর, ভারতীয় দলের বাংলাদেশ সফরের প্রথম ওয়ানডে। প্রথমবারের মতো আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে নামানো হলো উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান মহেন্দ্র সিং ধোনি ও পেসার জোগিন্দর শর্মাকে। ধোনির আক্রমণাত্মক ব্যাটিংয়ের খ্যাতি তখন সবার মুখে মুখে। ভারতীয় ‘এ’ দলের আফ্রিকা সফরে করেছিলেন জোড়া সেঞ্চুরি।

ফলে তার প্রতি প্রত্যাশাও ছিল অনেক বেশি। কিন্তু অভিষেক ম্যাচে ধোনি খেলতে পেরেছিলেন মাত্র একটি বল। আর সে বলেই কি না হারাতে হয়েছে নিজের উইকেট। না! বোলারের নৈপুণ্যে নয়, বরং তিনিই দৌড়ে ক্রিজ কভার করতে পারেননি। বল হাতে পেয়েই উইকেট ভেঙে দেন বাংলাদেশ উইকেটরক্ষক খালেদ মাসুদ। টিভি আম্পায়ার দ্বিতীয়বার দেখে রানআউট দেন ধোনিকে। শূন্য রানেই ফিরে যান অভিষিক্ত ধোনি।

সেই ম্যাচের ১৫ বছর পর আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারে নিজের শেষ ম্যাচ খেলেছেন ধোনি। এবার মঞ্চ বিশ্বকাপ সেমিফাইনাল, প্রতিপক্ষ নিউজিল্যান্ড। উইকেটের একপ্রান্ত আগলে রেখে ভারতের জয়ের আশা বাঁচিয়ে রেখেছিলেন ধোনি। কিন্তু ৭২ বলে ৫০ রান করার পর মার্টিন গাপটিলের সরাসরি থ্রোতে রানআউট হন ধোনি, ভারতও হেরে যায় ম্যাচ। যার ফলে সেটিই হয়ে আছে ধোনির শেষ আন্তর্জাতিক ম্যাচ।

কেননা শনিবার সন্ধ্যায় নিজের নামের আগে সাবেক শব্দটি বসানোর সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেছেন ধোনি। জানিয়েছেন ভারতের হয়ে আর খেলবেন না তিনি। এক ইন্সটাগ্রাম বার্তায় তিনি লিখেছেন, ‘নিরন্তর ভালোবাসা ও সমর্থনের জন্য সবাইকে অনেক ধন্যবাদ। আজ (শনিবার) সন্ধ্যা ৭টা ২৯ মিনিট (বাংলাদেশ সময় ৭টা ৫৯ মিনিট) থেকে আমাকে সাবেক খেলোয়াড় হিসেবে গণ্য করবেন।’

You may also like

Comments

Leave a reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *